রোজার শুদ্ধতা ও জাকাতুল ফিতর

দীর্ঘ একমাস সিয়াম সাধনার (দৈহিক ইবাদতের) পর বিশেষ আর্থিক ইবাদত হলো, জাকাতুল ফিতর বা ফিতরা। গরিবদের ঈদের আনন্দে শরিক হওয়া এবং রোজাকে ত্র“টিমুক্ত করতে ইসলামী শরিয়াহ এটা আবশ্যক করে দিয়েছে। দ্বিতীয় হিজরিতে এটা আবশ্যক করা হয়। পরিবারের সব সদস্যের প থেকে নির্ধারিত হারে সম্পদ অভাবীদের মাঝে বণ্টন করা জাকাতুল ফিতর। এ ফিতরাকে বিভিন্ন হাদিসে সাদাকাতুল ফিতর, জাকাতুল ফিতর, জাকাতুস সওম, জাকাতে রমাজান, জাকাতে আবদান (দেহের জাকাত) ও সদাকাতুর রুউস বলা হয়েছে (আওনুল বারী)।

Continue reading রোজার শুদ্ধতা ও জাকাতুল ফিতর

ফসলের জাকাত দেয়ার বিধান

ইসলাম বিশ্ববিজয়ী আদর্শ ও পূর্ণাঙ্গ জীবনবিধান। ইসলামেই রয়েছে ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক সমস্যার সমাধানসহ ভূমিবিষয়ক সমস্যারও সমাধান। ভূমি একটি রাষ্ট্রের অপরিহার্য উপাদান। ওশোরি ভূমিতে  ওশোর দেয়া মুসলমানদের ওপর ফরজ এবং অনাদায়ে কবিরা গুনাহ।

Continue reading ফসলের জাকাত দেয়ার বিধান

জাকাত দিলে সম্পদ বৃদ্ধি পায়

জাকাত ইসলামের অন্যতম মৌলিক একটি ইবাদত। দরিদ্র ও বঞ্চিত মানুষের কল্যাণে জাকাত একটি গুরুত্বপূর্ণ সামাজিক নিরাপত্তাব্যবস্থা। কিন্তু অনেকেই জাকাতের প্রধান নীতিমালা সম্পর্কে সম্যক অবহিত নন। 

পবিত্র কুরআনের বহুসংখ্যক আয়াতের মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালা আমাদের ওপর এ দায়িত্ব অর্পণ করেছেন। কুরআন শরিফের বহু আয়াতে সালাত বা নামাজের নির্দেশের পাশাপাশি জাকাত আদায়ের কথা বর্ণিত হয়েছে। সূরা বাকারায় বর্ণিত হয়েছেÑ ‘মুসলিম নর ও নারী একে অপরের বন্ধু, তারা সৎ কাজের আদেশ দেয় এবং অসৎ কাজে বাধা দেয়, সালাত কায়েম করে, জাকাত আদায় করে এবং আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য করে। যারা জাকাত আদায় করে না আল্লাহ তাদেরকে কঠিন শাস্তির হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

Continue reading জাকাত দিলে সম্পদ বৃদ্ধি পায়

দান-সদকার ফজিলত

দান-সদকা প্রকাশ্যেও দেয়া যায়, গোপনেও দেয়া যায়। প্রকাশ্যে দিলে অন্য লোকেরাও দানখয়রাত করতে অনুপ্রাণিত হয়, কিন্তু তাতে লোক দেখানোর মনোভাব সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। গোপনে দিলে এই আশঙ্কা থাকে না। হাদিস শরিফে আছে, প্রকাশ্যে দান-সদকাকারী উচ্চৈঃস্বরে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতকারীর মতো। আর গোপনে সদকা-খয়রাতকারী নিচুস্বরে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতকারীর মতো। এই আয়াতের তাফসিরে আল্লামা ইবনে কাসির র: লিখেন, এই আয়াত দ্বারা গোপনে সদকা-দানকারীর ফজিলত প্রমাণিত হয়। এরপর তিনি বুখারি শরিফ ও মুসলিম শরিফে সঙ্কলিত এবং হজরত আবু হুরায়রা রা: কর্তৃক বর্ণিত হাদিসের উদ্ধৃতি দিয়েছেন।

Continue reading দান-সদকার ফজিলত

হালাল-উপার্জন উত্তম ইবাদত

halalইসলামে ব্যবসায়-বাণিজ্য করা একটি উত্তম কাজ। ব্যবসায় করা আল্লাহ তায়ালার নির্দেশ। এই পৃথিবীতে মানবজাতির হেদায়েতের জন্য প্রেরিত বহু নবী-রাসূল ব্যবসায় করেছেন।  সাহাবায়ে কেরাম, তাবে-তাবেইন, আউলিয়া কেরামেরা ব্যবসায় করেছেন। আমাদের হানাফি মাজহাবের ইমাম হজরত ইমাম আবু হানিফাও র: একজন বিখ্যাত ব্যবসায়ী ছিলেন। ব্যবসায় করা হালাল। ইবাদতের দশ ভাগের নয় ভাগ হালাল খাদ্যের মধ্যে নিহিত। মহান আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে ইরশাদ করেছেন, ‘আল্লাহ তায়ালা ক্রয়-বিক্রয় হালাল (বৈধ) করেছেন এবং সুদ হারাম করেছেন’ (সূরা বাকারা : ২৭৫)।

Continue reading হালাল-উপার্জন উত্তম ইবাদত

আল্লাহর পথে ব্যয়ের ফজিলত

আল্লাহর পথে ব্যয়ের ফজিলতআমাদের সমাজে দেখছি, অনেক মেয়ে চাকরিতে ঢুকলেও তাদের উপার্জনের কিছু অংশ কোনো জনকল্যাণমূলক কাজ বা দ্বীনের পথে খরচ করছেন না। অথচ হজরত খাদিজা রা: কুরাইশদের মধ্যে একজন স্বনামধন্য ব্যবসায়ী ছিলেন। দাওয়াত ও রিসালাতের শুরু থেকেই রাসূলুল্লাহ সা:-কে সাহায্য করে গেছেন। দ্বীনের পথে সব রকমের কষ্ট হাসিমুখে সহ্য করেছেন। কোনো কোনো ঐতিহাসিক বলে থাকেন, রিসালাতের শুরুতে খাদিজা রা:-এর কাছে ২৫ হাজার দিরহাম ছিল, কিন্তু আট-নয় বছরে সঞ্চয়গুলো তিনি দাওয়াতের কাজে বিলিয়ে দিয়েছেন। তা ছাড়া ঈমান আনতে গিয়ে ঘর থেকে বিতাড়িত হওয়া মুসলমানদের তিনি ব্যয়ভার গ্রহণ করতেন।

Continue reading আল্লাহর পথে ব্যয়ের ফজিলত